পরাস্ত যেখানে পরাবাস্তবতাও

জোনাকি সিনেমার সেই উল্টোদিকের গলি
গোধূলির সময়ে, কিংবা চাঁদ সুরুজের
আসা যাওয়ার পথ ধরে আমিও যেতাম চলে
রবি-ঠাকুরের সেই রমেশের মতোই
আমিও যেতাম “চা খাইতে ও না খাইতে”
চা খওয়ার চেয়ে , না খাওয়াটাই ছিল মূখ্য।
ঠিক রমেশের মতোই আকন্ঠ
পান করতাম স্বকল্পিত ভালবাসার সুধা।

ঠিক যেন উপন্যাসের পাতা ছিঁড়ে
বেরিয়ে আসা সেই হেমনলিনী;
তীব্র এক অগ্নিশিখার মতো বুদ্ধিদীপ্তা
কথার খই ফুটিয়েছি যতটা আমি
ততটাই নীরব থেকেছো তুমি
আর যেটুকুই বা বলেছো সেতো
তোমার প্রজ্ঞার প্রজ্জ্বলিত প্রমাণ কেবল
অথচ আমি তো খুঁজেছি প্রেমের প্রমানিক ।

সকাল-সন্ধ্যার এ সন্ধানটুকু বোঝনি তুমি
এমনো তো নয় জানি, তবে দাওনি কখনই
জিজ্ঞাসার কোন জবাব, বিচক্ষণতার বিলক্ষণ
প্রমাণ দিয়েছ বিদ্যা ও বুদ্ধির প্রখরতায় ।
প্রেমের প্রসঙ্গ উঠলেই হেমনলিনীর মতোই
উঠে গেছো , গরম এক কাপ চা আনার অজুহাতে।
আমার হৃদয় ততক্ষণে ছিঁড়ে
ক্ষয়ে যাওয়া স্পঞ্জের স্যান্ডেল যেন ।

এখনতো তুমি এতটাই দূরে
যে জোনাকজ্বলা রাতে, কিংবা দুপুরে
পায়ে হেঁটে পাবো তোমার সন্ধান
সে সম্ভাবনা এখন সম্পূর্ণ ম্লান।
এখন আছো কেবল স্বপ্নে ও স্মৃতিতে
এবং, অতি অবশ্যই এক প্লেটনিক প্রীতিতে ।
হয়ত দেখা হবে স্বর্গের সেই স্বপ্নিল উদ্যানে
নিষিদ্ধ আপেল , তখনও কী নিষিদ্ধ , কে জানে !

২২শে জানুয়ারী,২০২১ ম্যারিল্যান্ড
Copyright@anisahmed

Comments

Leave a Reply