নৈঃশব্দের শব্দ

শব্দের সঙ্গে নৈঃশব্দের এমন যে বিরল মিল
স্ববিরোধী সংজ্ঞা সত্বেও
যে এক অলিখিত সম্পৃক্তি দু জনের
তাতেই বিস্মিত আনন্দে , মেঘ ফেটে নামে
বৃষ্টির অঝোর ধারা ।
কিংবা কাঁটার আধিপত্যকে ছাপিয়ে
ফোটে থোকায় থোকায় গোলাপ ।

শব্দ যখন উচ্চকিত উচ্ছাসে
নিজেকে করে উচ্চারিত বার বার
নৈঃশব্দ তখন নীরবে নিশিথ করে পার ।
শব্দ যখন বর্ণে, গন্ধে , মাতোয়ারা চারিদিক
নৈঃশব্দ তখন নিমগ্ন নিজেরই মধ্যে
যেন আবর্তিত এক ঘড়ির কাঁটার মতো
বৃত্তের ভেতরেই তার আনাগোনা ।

সাগর পারে আছড়ে পড়া ঢেউয়ের মতোই
শব্দ তখন ধ্বনি থেকে রূপান্তরিত প্রতিধ্বনিতে ।
নৈঃশব্দ তখন দ্রুতগামি চাঁদের মতো নিস্তরঙ্গ;
ডুব দেয় সাগরেরই ভিন্ন মেরুতে।

শব্দের অট্রহাসিতে চৌচির যখন
নৈঃশব্দের দেয়াল ,
তখনও কেবল নীরবে অশ্রুমোচন
বেদনার রঙে নীল হয়ে থাকা ,
শব্দেরই এক পাশে।
শব্দ ও নৈঃশব্দের এই মিথস্ক্রিয়ায়
জয়ী কে , কে বা জানে
নৈঃ শব্দের হৃদয়ের ভেতেরই তো আছে
শব্দের অনুদগত অস্তিত্ব।

copyright@Anis Ahmed

Comments

Leave a Reply