কোন কোন ছবি আছে

কোন কোন ছবি আছে যা ঈশ্বরই আঁকেন কেবল কোমল কোন তুলিতে কোন কোন ছবি আছে যেখানে উর্বশী নেমে আসেন মর্ত্যের ভূমিতে কোন কোন ছবি আছে হারায় না যা বাহ্যিক চাকচিক্যের আড়ালে কোন কোন ছবি আছে[…]

আর কখনো কবিতা লিখবো না

আজ ঠিক এই মূহুর্তে তোমাকে ছুঁয়ে প্রতিজ্ঞা করলাম …… না , না ভুল বললাম , তোমাকে ছুঁবো কী করে তুমিতো পলাতকা হরিণি ,হারাও বার বার, কখনও কেবল সবুজের আবর্তে , সুন্দরী গাছেরা হয় তোমার সখি[…]

মুখ ও মুখোশের কাহিনী

জীবনের প্রতিদিনই হ্যালোউইনের হই হল্লায় কাটে আজকাল মুখ ও মুখোশের দ্বন্দ্বটা বুঝিনা সহজেই সকাল সকাল । হ্যালোউইনের মুখোশটা আড়াল করে যে কচি কচি মুখ তাতে থাকে খেলার আনন্দ এবং নিতান্ত নির্মল এক সুখ। অথচ প্রত্যহই[…]

প্রেম হয় নোনতা যখন

ফ্যাকাশে রোদে অযথাই উষ্ণতা প্রার্থি আমি আবহাওয়ার মতো বিশ্বের বিবি হাওয়ারাও ফাঁকি দেন নিয়তই নইলে বাঁশি বাজালে রাধারা কেন নয় , কেন কেবল সর্পরা সব অযথাই নেচে ওঠে, অসংখ্যবার বারেক বিভ্রাটে। ওই যে তুমি ,[…]

বৈশাখের কাছে আমার যত ঋণ

বৈশাখের শাখে শাখে আনন্দের যে কালবোশেখী অন্তরালে তার থেকে যায় শেকড় সন্ধানের অনুরণন একদা হালখাতার খেরো পাতায় অংক মেলানোর যে আয়োজন । বড় জোর ব্যবসার জায়গায় মিষ্টিমুখ করা বানিজ্যিক পাল্লার পালা-পর্বণে যে বৈশাখ ছিল বৃত্তাবদ্ধ[…]

ক্ষয়িষ্ণু সময়

গলির ধারের মতলুব মিয়ার সুঁই-সুতোর এ-ফোঁড় ও -ফোঁড় কিংবা সেলাইয়ের কলেই পায়ের ছন্দেই রুটি-রুজির সঙ্গে মিশে আছে যার নৃত্যানন্দ যেন বা , নিত্যানন্দতো বটেই; যাকে দর্জি বলে এসছি আশৈশব , খলিফা বলে গাঁয়ের লোক —[…]

রেখায় রেখায় লেখা কবিতা

না , না মৌচাকে কেউ মারেনি ঢিল তবু মানুষ মৌমাছিরা গিজ গিজ করে মৌচাকের মোড়ে চিড়ে চ্যাপ্টা হয়ে ভিড়ে হেঁটে যাই আমি শান্তিনগরের দিকে শান্তির সন্ধানে জানি বলবেন , শান্তিনগরেই বা শান্তি কোথায় বাসের ভেঁপু[…]

এখনতো নিতান্তই গল্প

অকষ্মাৎ আজ রবি-ঠাকুরের অজস্র ভালোবাসারা সব জড়ো হলো একত্রে মারাঠি কিশোরি কিংবা স্কট তনয়া-যুগল অথবা কাদম্বরী দেবী কিংবা ভিক্টোরিয়া ওকাম্পো এবং,এঁদের মধ্যবর্তিনীরা সকলেই যে রবীন্দ্রনাথের অনুরাগের রাগিণী সমবেত সে সুর বাজলো ভোর না হতেই আজ[…]

চা’য়ের কাপে ঝড়

অরিন্দমের ভালোবাসা এখন পুরোনো এক বরফগলা নদী অক্ষরের দেয়াল ডিঙিয়ে বহমান হৃদয়ের কাছাকাছি আসে যেখানে অরণির পাথর মন, আগুন জ্বালায় নিজেরই স্পর্শে উত্তাপের ঊষ্ণতায় রোদ পোহায় শীত-বসন্তের সীমান্ত জুড়ে । আগুনের সেই একটুকু আঁচ পাওয়ার[…]

সর্বনামিক সংকট বণাম সর্ব নাম

বিস্ময়কর এক বিভ্রান্তিতে বিচলিত আমি ব্যাকরনিক বিভেদগুলো বুঝিনা একদম আমি, তুমি কিংবা সে ‘র এই পার্থক্য এই সব সর্বনাশা সর্বনামিক বিভাজন ব্যাকরণে অকারণের এই শ্রেণীকরণ এবং অতএব, মূঢ়তারা সব বিমূঢ় করে আমায়। ক্লাসরুমে ব্যাকরণ পড়ার,[…]